Top
undefined
Begin typing your search above and press return to search.

গুয়াহাটি-ঢাকার মধ্যে বিমান উড়ান শুরু হলো সোনোয়ালের সঙ্কেতে

গুয়াহাটি-ঢাকার মধ্যে বিমান উড়ান শুরু হলো সোনোয়ালের সঙ্কেতে

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  2 July 2019 9:54 AM GMT

গুয়াহাটিঃ মুখ্যমন্ত্ৰী সর্বানন্দ সোনোয়াল সোমবার গুয়াহাটি ও বাংলাদেশের রাজধানী শহর ঢাকার মধ্যে প্ৰথম আন্তর্জাতিক বিমান সেবার উদ্বোধন করলেন।

গুয়াহাটির লোকপ্ৰিয় গোপীনাথ বরদলৈ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে পতাকা নেড়ে স্পাইস জেট বিমান উড়ানের সবুজ সঙ্কেত দেন মুখ্যমন্ত্ৰী। আন্তর্জাতিক বিমান যোগাযোগ স্কিমের(আইএসিএস)অধীনে এই বিমান পরিষেবা চালু করা হলো। এই বিমান প্ৰতিদিন গুয়াহাটি ও ঢাকার মধ্যে চলাচল করবে।

গুয়াহাটি-ঢাকার মধ্যে প্ৰথমে উড়ানে অসম সরকারের প্ৰতিনিধি দলটির নেতৃত্ব দেন মন্ত্ৰী পীযূষ হাজরিকা। ছয়জন বিধায়কও প্ৰতিনিধি দলে শামিল ছিলেন। বিমান পরিষেবার উদ্বোধন উপলক্ষে বিমানবন্দরে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্ৰী সোনোয়াল বলেন,প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্ৰ মোদি গোটা উত্তর পূর্বাঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নকল্পে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছেন। অসম ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশগুলির মধ্যে বিমান সেবা গড়ে তুলতে সরকার অগ্ৰাধিকার দিয়ে আসছে-উল্লেখ করেন মুখ্যমন্ত্ৰী। উল্লেখ্য,আন্তর্জাতিক বিমান যোগাযোগ প্ৰকল্পের অধীনে গুয়াহাটি ও আশিয়ান তথা বিবিএন দেশগুলির সঙ্গে সরাসরি বিমান উড়ানের ব্যবস্থা করার জন্য আর্জি জানিয়েছিলেন সোনোয়াল। এরজন্য রাজ্য সরকার ভিজিএফ-এর অধীনে তিন বছরের জন্য প্ৰতি বছর ১০০ কোটি টাকা করে দেওয়ার প্ৰতিশ্ৰুতি দিয়েছে,উল্লেখ করেন মুখ্যমন্ত্ৰী। আগামি মাস কয়েকের মধ্যেই গুয়াহাটি থেকে ব্যাংকক,ইয়াঙ্গন,কাঠমান্ডু,হানয় ও কুয়ালালামপুরের মধ্যে সরাসরি বিমান সেবা চালু করা হবে।

তিনি আরও বলেন,প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদির নেতৃত্বাধীন কেন্দ্ৰীয় সরকার উত্তর পূর্বাঞ্চলের মধ্যে বিমান যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। সোনোয়াল আরও বলেন,অসমের সঙ্গে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশগুলি সরাসরি বিমান সংযোগ গড়ে তোলাই সরকারের অভীষ্ট লক্ষ। পূর্বতন সরকারের আমলে উত্তর পূর্বাঞ্চলকে চরম অবহেলা করার প্ৰসঙ্গ উত্থাপন করে সোনোয়াল বলেন,প্ৰধানমন্ত্ৰী মোদির দৃষ্টান্তমূলক পদক্ষেপের জন্যই এই অঞ্চল দ্ৰুত উন্নয়নের পথে এগিয়ে চলেছে। প্ৰধানমন্ত্ৰী উত্তর পূর্বাঞ্চলকে অষ্টলক্ষ্মী আখ্যা দিয়েছেন। মোদি ‘এ’ ফর আসাম উল্লেখ করে উত্তর পূর্বাঞ্চলের পাশাপাশি অসমের দ্ৰুত ও সার্বিক বিকাশে বিস্তৃত কর্মসূচি হাতে নিয়েছেন। প্ৰধানমন্ত্ৰী ‘অ্যাক্ট ইস্ট’ পলিসি রূপায়ণের মাধ্যমে এই অঞ্চলের সঙ্গে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশগুলির মধ্যে সংযোগ গড়ে তোলার যে পদক্ষেপ নিয়েছেন তাতে গোটা উত্তর পূর্বাঞ্চল দ্ৰুত বিকাশের পথে এগিয়ে যাবে-বলেন সোনোয়াল।

তিনি আরও বলেন,যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতির জন্য কেন্দ্ৰ ও রাজ্য সরকারের গৃহীত পদক্ষেপের জন্য এই অঞ্চলের কৃষকদের উৎপাদিত সামগ্ৰী কার্গো বিমানের সাহায্যে সিঙ্গাপুর,আবুধাবির বাজারে রফতানি করার সু্যোগ তৈরি হয়েছে। এরফলে অসমের কৃষকদের সামনে এক নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হবে বলে আশা করা যায়।

এদিনের অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের সহকারী হাইকমিশনার মহম্মদ তনবীর মনসুর অসম ও ঢাকার মধ্যে এই বিমান পরিষেবাকে ঐতিহাসিক বলে অভিহিত করেন। তাঁর মতে,এই বিমান পরিষেবা চালু হওয়ায় বাংলাদেশের রোগীরা গুয়াহাটিতে উন্নত চিকিৎসার জন্য আসতে পারবেন। তাছাড়া বাংলাদেশি পর্যটক অসম ও উত্তর পূর্বাঞ্চলের নৈসর্গিক প্ৰাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করার সু্যোগ পাচ্ছেন।

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত অন্যান্যদের মধ্যে ছিলেন রাজ্যের বাণিজ্য ও শিল্প দপ্তরের মন্ত্ৰী চন্দ্ৰমোহন পাটোয়ারি,অসামরিক পরিবহন দপ্তরের সচিব প্ৰদীপ সিং খারোলা। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন তাঁরাও।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ রাষ্ট্ৰীয় সড়কঃ কাজ না করলে ঠিকাদারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে এনএইচআইডিসিএলকে বললেন মুখ্যমন্ত্ৰী

Next Story