রাজ্যের খবর

করোনা রোধে ৩১ মার্চ পর্যন্ত পর্যটন স্থালগুলি বন্ধ রাখার নির্দেশ মেঘালয় সরকারের

করোনা

শিলং: নোভেল করোনা ভাইরাস বা কোভিড-১৯-এর প্ৰাদুর্ভাব বিশ্বজুড়ে যে ত্ৰাস সৃষ্টি করেছে তা প্ৰতিরোধে মেঘালয় সরকার রাজ্যের সব পর্যটন স্থল ৩১ মার্চ অবধি বন্ধ রাখার কথা ঘোষণা করেছে। রাজ্যের পর্যটন স্থালগুলি বন্ধ রাখার সময়সীমা আগামি ১৫ এপ্ৰিল পর্যন্ত বৃদ্ধি করার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই যে সমস্ত পর্যটক মেঘালয় এবং রাজ্যের অন্যান্য স্থান পরিদর্শনের জন্য মুখিয়ে ছিলেন পরবর্তী ঘোষণা না করা পর্যন্ত তাদের পরিকল্পনা পুনরায় নির্ধারণ করার অনুরোধ জানানো হয়েছে।

এদিকে,পুব খাসি পাহাড়ের পুলিশ সুপার ক্লোউডিয়া লিংওয়া জেলায় বিশেষকরে কোভিড-১৯-এ আক্ৰান্ত দেশগুলি থেকে আসা কোনও বিদেশি পর্যটকের অবস্থান অথবা ঘোরাফেরা করছেন কিনা তার বিস্তারিত রিপোর্ট দিতে হোটেল ও গেস্টহাউস মালিকদের নির্দেশ দিয়েছেন।

বিদেশি পর্যটক বেশি সংখ্যায় রাজ্যে এসেছে কিনা লিংওয়ার কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন,এই সংকটপূর্ণ সময়ে যে সমস্ত পর্যটক শিলঙে এসেছেন তাদের সংখ্যা বেশি হবে না। তবে যারা মার্চে রাজ্যে এসেছিলেম্ন তারা ইতিমধ্যেই চলে গেছেন।

লিংওয়া আরও বলেন,মেক্সিকো,ইউকো,ফ্ৰান্স এবং অন্যান্য দেশ থেকে কিছু লোক শিলং সফরে এসেছিলেন। কোভিড-১৯-এর যে কোনওরকমের প্ৰাদুর্ভাব ঠেকাতে শ্ৰোনাংডেং ট্যুরিস্ট স্পট এবং কুদেনগ্ৰিম ট্যুরিস্ট স্পট পরবর্তী নোটিশ ইস্যু না করা পর্যন্ত বিদেশি এবং রাজ্যের বাইরের পর্যটকদের রাজ্যে প্ৰবেশ নিষেধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কুদেনগ্ৰিম ট্যুরিজম এবং এনভাইরনমেন্টাল প্ৰোটেকশন সোসাইটি এবং দরবার স্নং স্নংডেং কেন্দ্ৰীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার মন্ত্ৰকের এক নির্দেশিকা পাওয়ার পর পৃথকভাবে এই সিদ্ধান্ত নেয়। তারা জানায়,একমাত্ৰ স্থানীয় দর্শকরাই পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত পর্যটন স্থলগুলি পরিদর্শন করতে পারবে।

এদিকে,অসমে করোনা ভাইরাসের সংক্ৰমণ ঠেকাতে প্ৰতিরোধমূলক ব্যবস্থা হিসেবে জাদুঘর,গ্ৰন্থাগার,কোচিং সেন্টার,বিউটি পার্লার এবং সেলুন ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রাজ্যের অর্থ স্বাস্থ্যমন্ত্ৰী হিমন্তবিশ্ব শর্মা একথা জানিয়েছেন। অসম সরকার করোনা সংক্ৰমণ প্ৰতিরোধ ও এর সুষ্ঠু মোকাবিলায় কোভিড-১৯ রেগুলেশন-২০২০ গঠন করেছে।

 

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ করোনা ভাইরাস প্ৰতিরোধঃ সব হাসপাতালে পৃথক কক্ষ রাখার নির্দেশ সরকারের

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: GMC carries out eviction drive against illegal street shops at Panbazar, Fancy Bazar