Begin typing your search above and press return to search.

টানা বৃষ্টিতে ভাসছে মায়ানগরী মুম্বই,স্কুলে ছুটি ঘোষণা

টানা বৃষ্টিতে ভাসছে মায়ানগরী মুম্বই,স্কুলে ছুটি ঘোষণা

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  2 July 2019 1:41 PM GMT

মুম্বইঃ পাঁচ দিনের প্ৰচণ্ড টানা বৃষ্টিতে ভাসছে মায়ানগরী মুম্বই। অবিশ্ৰান্ত বৃষ্টিতে মহানগরী যে কি রূপ নিয়েছে তা সহজেই অনুমেয়। শহরের বহু এলাকা জল থৈথৈ করছে। সড়ক ও পরিবহণ ব্যবস্থা প্ৰায় ভেঙে পড়েছে। বৃহান মুম্বই মিউনিসিপাল কর্পোরেশন(বিএমসি)আজ অর্থাৎ ২ জুলাই সরকারি ও বেসরকারি স্কুলে ছুটি ঘোষণা করেছে।

আঞ্চলিক আবহাওয়া কেন্দ্ৰের রিপোর্ট অনু্যায়ী,গত ৪৮ ঘণ্টায় মহানগরীতে বৃষ্টিপাতের মাত্ৰা সীমা ছাপিয়ে গেছে। গোটা জুন মাসে মুম্বইয়ে গড়ে ৫৫০ মিলি মিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। কিন্তু গত পাঁচদিনের লাগাতার বৃষ্টি এই রেকর্ডও ছাড়িয়ে গেছে।

মুম্বই শহরে জরুরিকালীন অবস্থার মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ায় বিএমসি জরুরিকালীন কিছু ফোন নম্বর চালু করেছে,যাতে ভুক্তভোগী মানুষ সাহায্যের জন্য আবেদন জানাতে পারেন।

জরুরিকালীন হেল্পলাইন নম্বরগুলো নিচে উল্লেখ করা হলোঃ

১০৮-মুনসুন হেল্পলাইন,বিএমসি।

১৯১৬-বৃষ্টির সময় সিভিক ডিজেস্টার,বিএমসি।

১০৮-অ্যাম্বুলেন্স সেবা।

১৫১২-যেকোনো ধরনের রেলওয়ে ইমারজেন্সির ক্ষেত্ৰে।

১০০-পুলিশ হটলাইন। ৯১৯৮২২৪৯৮২২৪ ইমারজেন্সি হটলাইন ফর ডিটোর্স,ডিজেস্টার্স অথবা হেল্প,মুম্বই পুনে এক্সপ্ৰেস হাইওয়ে পেট্ৰোল।

১১২-ভারতের একক ইমারজেন্সি নম্বর,অনেকটা আমেরিকার ৯১১-র মতো।

বর্ষণ সিক্ত মুম্বই শহরের অবস্থা বর্তমানে মোটেও সুবিধাজনক নয়। বিভিন্ন সড়ক ও রেললাইন জলে ডুবে আছে। এরফলে নিত্যযাত্ৰী এবং ব্যবসায়ীরা গন্তব্যে যাওয়ার ক্ষেত্ৰে চরম বাধার সম্মুখীন হয়েছেন। জনৈক সরকারি মুখপাত্ৰ একথা জানিয়েছেন। ইমারজেন্সি সেবা থেকে শুরু করে শহরে যানবাহন প্ৰায় চলছে না বলা যায়।

শহরের মানুষ বিশেষ করে জলবন্দি এলাকার মানুষ জনকে ঘরের ভিতরে থাকার নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্ৰশাসন। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার দরুন মুম্বই বিমানবন্দরের প্ৰধান রানওয়েটি বন্ধ রাখা হয়েছে। সোমবার বেলা ১১টা ৪৫ মিনিট নাগাদ স্পাইস জেট-এর একটি বিমান বৃষ্টির মধ্যে অবতরণের সময় লক্ষ্য থেকে অনেকটা দূরে চলে গিয়েছিল। যা খুবই গুরুতর বিষয়। এমন কি মঙ্গলবার সকালেও বোয়িং ৭০৭-৮০০ বিমানটিকে রানওয়ের শেষ সীমায় গিয়ে থামতে দেখা যায়। আরও রিপোর্ট পাওয়া গেছে ৫৪টি বিমান এদিন গোয়া,আহমেদাবাদ এবং বেঙ্গালুরুর মতো অন্যান্য বিমানবন্দর থেকে চালানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ রাজ্যের স্কুলগুলিতে বৃষ্টির জল সংরক্ষণে প্ৰকল্প হাতে নিচ্ছে শিক্ষা বিভাগ

Next Story