কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে ভারতীয় রাষ্ট্ৰদূতকে বহিষ্কার করলো ইসলামাবাদ,বন্ধ ব্যবসা বাণিজ্য

কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে ভারতীয় রাষ্ট্ৰদূতকে বহিষ্কার করলো ইসলামাবাদ,বন্ধ ব্যবসা বাণিজ্য

ইসলামাবাদঃ জম্মু ও কাশ্মীর থেকে সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের প্ৰেক্ষিতে পাকিস্তান তাদের দেশে নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্ৰদূত অজয় বিসারিয়াকে বুধবার ইসলামাবাদ থেকে বহিষ্কার করেছে। পাক বিদেশমন্ত্ৰী শাহ মেহমুদ কুরেশি একথা ঘোষণা করেছেন। নয়াদিল্লিতে নিযুক্ত পাক রাষ্ট্ৰদূতকে শিগগিরই তারা ফিরিয়ে নিচ্ছে। ভারতের কূটনৈটিক সম্প্ৰদায় পাকিস্তানের এই সিদ্ধান্তকে ‘বেপরোয়া কাজ’ হিসেবে অভিহিত করেছেন।

বর্তমানে ভারতে পাকিস্তানের কোনও হাইকমিশনার নেই যদিও তবে পাকিস্তানের এই ঘোষণার অর্থ এই দাঁড়াচ্ছে যে কূটনীতিক মইনুল হকের ওই পদে বহাল হবার কথা থাকলেও সেটা আর হয়ে উঠছে না। জম্মু ও কাশ্মীর থেকে বিশেষ মর্যাদা তুলে নেওয়ার জেরে ইসলামাবাদ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক ছেদের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

পাকিস্তানের পদস্থ সামরিক ও অসামরিক কর্মকর্তারা বুধবার এক বৈঠকে মিলিত হয়ে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক অবনমন এবং ভারতের সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেয়। নয়াদিল্লি জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা তুলে নেওয়ার জেরেই এমন সিদ্ধান্ত নেয় ইসলামাবাদ।

পাকিস্তানের ন্যাশনাল সিকিউরিটি কমিটির(এনএসসি)দ্বিতীয় দফার গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। পাক প্ৰধানমন্ত্ৰী ইমরান খান বৈঠকে পৌরোহিত্য করেন। কাশ্মীর নিয়ে ভারত সরকারের পদক্ষেপের ফলে উদ্ভুত পরিস্থিতিও খতিয়ে দেখা হয় বৈঠকে।

‘আমাদের রাষ্ট্ৰদূতকে আর বেশিদিন নতুন দিল্লিতে ফেলে রাখা হবে না এবং ভারতের রাষ্ট্ৰদূতকেও আমরা এখান থেকে ফেরৎ পাঠাচ্ছি’-পাক বিদেশমন্ত্ৰী শাহ মেহমুদ কুরেশি এআরওয়াই নিউজকে একথা জানিয়েছেন। বৈঠকের পর প্ৰকাশিত এক বিজ্ঞপ্তি অনু্যায়ী এনএসসি দুদেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক অবনমন এবং ভারতের সঙ্গে বাণিজ্যিক লেনদেন স্থাগিত রাখা ও দ্বিপাক্ষিক ব্যবস্থাবলি পর্যালোচনা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এছাড়াও কাশ্মীর ইস্যু রাষ্ট্ৰপুঞ্জে তোলার ও ১৪ আগস্ট কাশ্মীরিদের প্ৰতি একাত্মতা প্ৰকাশ করে পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবস পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে এনএসসি। পাক প্ৰধানমন্ত্ৰী ইমরান খান সব কূটনৈতিক চ্যানেলগুলিকে ‘ভারতের স্বৈরতান্ত্ৰিক শাসন ব্যবস্থা,নকশা ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের মুখোশ’ খুলে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। বৈঠক শেষে প্ৰকাশিত বিবৃতিতে একথা উল্লেখ করা হয়েছে। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন পাক প্ৰতিরক্ষা মন্ত্ৰী পারভেজ খাট্টাক,বিদেশমন্ত্ৰী শাহ মেহমুদ কুরেশি,চেয়ারম্যান জয়েণ্ট চিফ অফ স্টাফ কমিটির জেনারেল জুবের হায়াত,সেনা প্ৰধান জেনারেল কামার বাজওয়া,নৌ প্ৰধান অ্যাডমিরাল জাফর মেহমুদ আব্বাসি,বিমানবাহিনীর প্ৰধান এয়ার চিফ মার্শাল মুজাহিদ আনোয়ার খান,আইএসআই-র ডিরেক্টর জেনারেল লেফটেনাণ্ট জেনারেল ফায়েজ হামিদ এবং অন্যান্য পদস্থ কর্মকর্তারা।

১৪ আগস্ট বীর কাশ্মীরিদের প্ৰতি সহানুভূতি প্ৰদর্শন করে তাঁদের সঙ্গে একাত্মতা দেখিয়ে পালন করা হবে পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবস। স্বনির্ভরতার জন্যেই কাশ্মীরিরা লড়াই করছেন। তাই তাঁদের প্ৰতি একাত্মতা প্ৰদর্শনই এই মুহূর্তে বড় কাজ হবে-উল্লেখ করা হয়েছে বিবৃতিতে। ১৫ আগস্ট কালা দিবস পালনেরও সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তান।

গত মঙ্গলবার সংসদের যৌথ অধিবেশনে ভাষণ দেওয়ার সময় প্ৰধানমন্ত্ৰী ইমরান খান বলেছেন,কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা উঠিয়ে নেওয়ায় ফের পুলওয়ামার মতো ঘটনা ঘটতে পারে,এটা ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে যুদ্ধংদেহী পরিবেশের সৃষ্টি করবে। ‘আমি ইতিমধ্যেই আগাম আঁচ করতে পারছি যে,এমন কিছুই ঘটতে চলছে। ভারত আবার আমাদের ওপর আক্ৰমণ হানতে পারে। এমনটা হলে আমরাও জবাব দিতে ছাড়বো না। কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা রদ করার নিন্দা করে খান ভারতের শাসনে থাকা কাশ্মীরি মানুষের জন্য সারা বিশ্বকে আওয়াজ তোলার আহ্বান জানান। বিবৃতিতে জানানো হয়েছে কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে কথা বলতে পাক বিদেশমন্ত্ৰী কুরেশি বেইজিং যাচ্ছেন।

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: CJI Ranjan Gogoi concerned over the number of pending cases in courts

logo
Sentinel Assam- Bengali
bengali.sentinelassam.com