রাজ্যের খবর

মহানগরীর প্ৰধান অঞ্চলগুলোতে চারদিন পানীয় জল সরবরাহ বন্ধ

পানীয় জল

গুয়াহাটিঃ মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে বন্ধ থাকছে পানীয় জল সরবরাহ। জলের পাইপ মেরামতির জন্যই বন্ধ রাখা হচ্ছে জলের জোগান। জুরোডের জল সরবরাহ প্ৰকল্পের অধীনে যে সমস্ত মানুষ জল পেয়ে থাকেন তারা আগামি চারদিন জল পাবেন না। জুরোড,গণেশগুড়ি,খ্ৰিষ্টানবস্তি,রাজগড়,রুক্মিণীনগর,শ্ৰীনগর,তরুণ নগর,অম্বিকাগিরি নগর,হেঙেরাবাড়ি,রূপ নগর,জাপরিগোগ,ভাস্কর নগর,সরু মটরিয়া এবং জটিয়ায় বন্ধ থাকবে জল সরবরাহ। ৮ আগস্ট থেকে ১১ আগস্ট অবধি এই অঞ্চলগুলিতে জল সরবরাহ বন্ধ থাকছে। এক বিশেষ তথ্য অনু্যায়ী জুরোড জল সরবরাহ প্ৰকল্পের অধীনে প্ৰায় ৭১৫৪টি কানেকশন রয়েছে। এখানে জল পাম্পের ব্যবস্থা আছে যদিও জল সরবরাহের পাইপ ইত্যাদি দীর্ঘদিন ধরে ক্ষতিগ্ৰস্ত অবস্থায় রয়েছে। তাই এই সব পাইপ পুনরায় মেরামতির প্ৰয়োজন। এই সব ফুটো এবং ক্ষতিগ্ৰস্ত পাইপগুলো ফের মেরামত করা হবে,যাতে আগামি কিনে জনগণকে দুর্ভোগের মুখে পড়তে না হয়।

বৃহস্পতিবার গুয়াহাটি জল বোর্ড একটি নোটিশ জারি করে। এসম্পর্কে কামরূপের(মেট্ৰো)জেলাশাসক বিশ্বজিৎ পেগু জানান যে জল সরবরাহের ক্ষেত্ৰে বিভিন্ন অসুবিধা দেখা দেওয়ায় পাইপগুলো ফের মেরামত করা হবে,যাতে আগামি দিনে মানুষজনকে দুর্ভোগ ভুগতে না হয়।

অসমে পানীয় জলের সমস্যা নতুন কোনও প্ৰসঙ্গ নয়। রাজ্যের অনগ্ৰসর অঞ্চল সমূহে বিশুদ্ধ পানীয় জল সরবরাহের ক্ষেত্ৰে অসম দেশের অন্যান্য অঞ্চল থেকে এখনও অনেক পিছিয়ে রয়েছে। রাজ্যের ৮৮০৭৬টি অনগ্ৰসর অঞ্চলের মধ্যে মাত্ৰ ৫৫১৭১টি অঞ্চলে পানীয় জলের সুবিধা রয়েছে। রাজ্যের অনগ্ৰসর অঞ্চল সমূহের লোকেদের জন্য বিশুদ্ধ পানীয় জল সরবরাহের ব্যবস্থা করতে কেন্দ্ৰীয় জলসম্পদ বিভাগ আর্থিক সাহায্য দিয়েছে। এসব কাজ করা হয়েছিল ২০০৯ সালের ১ এপ্ৰিল। রাজ্যের ৬২.৬ শতাংশ বস্তিতে ১.৭৩ কোটি মানুষ বসবাস করেন। অসমের মোট ২৩১৩৭টি অঞ্চল আংশিকভাবে জল সরবরাহ প্ৰকল্পের অধীন রয়েছে। কিন্তু লক্ষণীয় বিষয় হচ্ছে রাজ্যের অনগ্ৰসর ৯৭৮৬ অঞ্চলে পানীয় জলে অত্যন্ত পরিমাণে ফ্লোরাইড,আর্সেনিক,লোহা ইত্যাদি মিশ্ৰিত রয়েছে যা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকারক।

 

 

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ পানীয় জল দিয়ে গাড়ি ধুয়ে বিপাকে বিরাট