‘এক দেশ,এক ভোট’ ইস্যুতে আজ সর্বদলীয় বৈঠক ডাকলেন মোদি,যাচ্ছেন না মমতা

‘এক দেশ,এক ভোট’ ইস্যুতে আজ সর্বদলীয় বৈঠক ডাকলেন মোদি,যাচ্ছেন না মমতা

নয়াদিল্লিঃ ‘এক দেশ,এক নির্বাচন’ এবং অন্যান্য কিছু গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু নিয়ে প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদি আজ সর্বদলীয় বৈঠক ডেকেছেন। সব রাজনৈতিক দলের প্ৰধানদের বিশেষ করে সংসদে যাদের প্ৰতিনিধি রয়েছেন তাদের আজকের বৈঠকে উপস্থিত থাকার আমন্ত্ৰণ জানিয়েছেন মোদি। ইস্যুগুলি নিয়ে সরকারের সঙ্গে খোলামেলা বাক বিনিময়ের উদ্দেশ্যেই সব দলকে এই বৈঠকে ডাকা হয়েছে। সরকার পরিচালনা সংক্ৰান্ত ইস্যু নিয়ে প্ৰধানমন্ত্ৰী আগামিকাল সংসদের উভয় সদনের সদস্যদের সঙ্গে মত বিনিময় করবেন।

লোকসভা ও বিধানসভার নির্বাচন একই সঙ্গে করানোর ব্যাপারে মোদি যে প্ৰস্তাব রেখেছেন তার প্ৰতি জোর সমর্থন ব্যক্ত করেছে ওড়িশার শাসক বিজু জনতা দল(বিজেডি)।তবে অন্যান্য কিছু বিরোধী দল এই প্ৰস্তাবটি ‘অবাস্তব’ বলে আখ্যায়িত করেছে।

জাতির জনক মহাত্মা গান্ধীর দেড়শো বছর জন্মজয়ন্তী পালন এবং সংসদে একটা সুষ্ঠু ও পরিচ্ছন্ন বাতাবরণ গড়ে তোলা নিয়ে দলীয় নেতাদের সঙ্গে প্ৰধানমন্ত্ৰী কথা বলতে পারেন। এদিকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্ৰী মমতা ব্যানার্জি নয়াদিল্লিতে বুধবার প্ৰধানমন্ত্ৰী মোদির ডাকা সব রাজনৈতিক দলের প্ৰধানদের বৈঠকে যোগ দিচ্ছেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন। মঙ্গলবার কেন্দ্ৰীয় সরকারের কাছে লেখা এক চিঠিতে মমতা বলেছেন ‘এক দেশ, এক ভোট’-এর মতো একটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও স্পর্শকাতর ইস্যু নিয়ে তাড়াহুড়ো করে কোনও সিদ্ধান্তে পৌঁছনো কেন্দ্ৰের পক্ষে মোটেই উচিত হবে না।

কেন্দ্ৰীয় সংসদ বিষয়ক মন্ত্ৰী প্ৰহ্লাদ যোশি যিনি মমতাকে আনুষ্ঠানিক আমন্ত্ৰণ জানিয়েছিলেন তাঁর উদ্দেশে লেখা ওই চিঠিতে এব্যাপারে একটা শ্বেতপত্ৰ প্ৰকাশের দাবি তুলেছেন মমতা। শ্বেতপত্ৰে এবিষয়ে মতামত প্ৰকাশের জন্য রাজনৈতিক দলগুলোর নেতাদের পর্যাপ্ত সময় দেওয়ার আর্জি রেখেছেন মমতা। ব্যানার্জির মতে,হুড়োহুড়ি করে বৈঠক ডেকে এই সমস্যা মেটাতে সিদ্ধান্ত নিলে তা আখেরে ঠিক কাজ হবে না। এই বিষয়টি নিয়ে সাংবিধানিক বিশেষজ্ঞ এবং নির্বাচন কমিশনের মতামত নেওয়ারও প্ৰয়োজন রয়েছে-মনে করেন মমতা।

চিঠিতে তৃণমূল সুপ্ৰিমো আরও বলেছেন,নীতি আয়োগ দেশের কয়েকটি জেলার উন্নয়নের জন্য চিহ্নিত করেছে। এব্যাপারে আপত্তি তুলে ধরা হয়েছে। তাঁর মতে,এর ফলে সার্বিক উন্নয়ন বা বিকাশ মার খাবে। প্ৰধানমন্ত্ৰীর বৈঠকে মমতা না যাওয়ায় দেশের যুক্তরাষ্ট্ৰীয় কাঠামো ধাক্কা খাবে এমনটাই মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহল।

এদিকে পশ্চিমবঙ্গের বনগাঁওয়ের তৃণমূল কংগ্ৰেস বিধায়ক বিশ্বজিৎ দাস মঙ্গলবার বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় মমতার তৃণমূল কংগ্ৰেস আরও একটা ধাক্কা খেলো-বিজেপির বরিষ্ঠ নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গিয়া এবং মুকুল রায়ের উপস্থিতিতে দাস বিজেপিতে যোগ দেন।

logo
Sentinel Assam- Bengali
bengali.sentinelassam.com