Top
Begin typing your search above and press return to search.

কোভিড-১৯-এর মোকাবিলায় ২২ মার্চ জনতা কার্ফুর ডাক প্ৰধানমন্ত্ৰীর

কোভিড-১৯-এর মোকাবিলায় ২২ মার্চ জনতা কার্ফুর ডাক প্ৰধানমন্ত্ৰীর

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  20 March 2020 7:51 AM GMT

নয়াদিল্লিঃ করোনা ভাইরাসের সংক্ৰমণে বর্তমানে গোটা বিশ্ব এক চরম সংকটের মুখে। কোভিড-১৯ মহামারিতে আক্ৰান্ত হয়েছে ভারতও। এরই পরিপ্ৰেক্ষিতে প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদি এই নজিরবিহীন পরিস্থিতিতে সংকট এড়াতে আগামি ২২ মার্চ রবিবার সকাল ৭টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত দেশবাসীকে জনতা কার্ফু পালনের ডাক দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার জাতির উদ্দেশে এক ভাষণে মোদি বলেন,‘আমি দেশবাসীকে আগামি ২২ মার্চ রবিবার সকাল ৭টা থেকেই গত ৯টা পর্যন্ত জনতা কার্ফু’ পালনের অনুরোধ জানাচ্ছি। ‘এটা জনতার কার্ফু,জনতাই এই কার্ফু ডেকেছেন। তাই আসুন,আমরা ওই দিন সকাল ৭টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত স্বেচ্ছায় জনতা কার্ফু পালন করি’। প্ৰধানমন্ত্ৰী বলেন,২২ মার্চ জনগণ রাস্তায় না গিয়ে এবং কোনও সামাজিক সমাবেশে শামিল না হয়ে তাদের বাড়িতেই থাকুন। দেশবাসীকে সজাগ থাকার নিদান দিয়ে প্ৰধানমন্ত্ৰী বলেন,নিজের দেশ এবং বিশ্বকে রক্ষা করার দায়িত্ব আমার,আপনার ও সবার।

করোনা সংক্ৰমণের মোকাবিলায় যাঁরা নিরলস পরিশ্ৰম করে চলেছেন,তাঁদের প্ৰতি রবিবার সন্ধ্যা পাঁচটায় বাড়ির বারান্দা এবং পথে নেমে তাঁদের প্ৰতি স্যালুট জানাতে আহ্বান জানিয়েছেন প্ৰধানমন্ত্ৰী। এই জনতা কার্ফু পালন করা প্ৰতিজন নাগরিকের কর্তব্য।

প্ৰধানমন্ত্ৰী আরও বলেন, দেশবাসীকে আতঙ্কিত হবার প্ৰয়োজন নেই। তবে জনগণকে কিছু খাদ্য সামগ্ৰী বাড়িতে মজুত করে রাখার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। খাদ্য সামগ্ৰীর সরবরাহ কোনওভাবে ব্যাহত হবে না-আশ্বাস দেন প্ৰধানমন্ত্ৰী। আগামি সপ্তাহগুলোতে বিশেষ করে ৬০ ঊর্ধ্ব ব্যক্তিদের বাড়ির বাইরে না যেতে আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। অতীতের উদাহরণ শেয়ার করে মোদি বলেন,যুদ্ধকালীন পরিস্থিতির সময় দেখা গেছে গ্ৰামগঞ্জে সব বাড়ির জ্বানালার কাচ কালো করে অন্ধকার করে রাখা হতো। বর্তমান প্ৰজন্ম হয়তো সে ব্যাপারে জ্ঞাত নয়। এখন যুদ্ধ নয় যদিও জনগণকে এই মারণ জীবাণু সংক্ৰমণের বিরুদ্ধে অবশ্যই সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিতে হবে। তিনি বলেন,স্থানীয় প্ৰশাসন এই সংকটজনক পরিস্থিতির মোকাবিলায় নিয়মিত কাজ করে চলেছে। রাজ্য সরকারগুলি এ সংক্ৰান্ত বিষয়ে যে নির্দেশিকা জারি করেছে জনগণকে তা মেনে চলার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন প্ৰধানমন্ত্ৰী।

‘কোভিড-১৯-এর সংক্ৰমণ থেকে নিজেকে বাঁচানোর পাশাপাশি অন্যকেও বাঁচাতে হবে’। বর্তমান পরিস্থিতিতে বিপদ যাতে আর না বাড়ে তারজন্য সাধারণ মানুষকেও সহযোগিতার তার বাড়িয়ে দিতে হবে। দুটো বিশ্বযুদ্ধের ভয়াবহতার সঙ্গে বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্ৰমণের তুলনা টেনে প্ৰধানমন্ত্ৰী বলেন,মানব জাতির সামনে আজ এক গভীর সংকট নেমে এসেছে। বিশ্বের বহু দেশ এর আক্ৰমণে জর্জরিত। তাই সংক্ৰমণ এড়াতে জনগণকে বাইরে ঘোরাফেরা না করে বাড়িতে থাকারই নিদান দিয়েছেন নমো। প্ৰধানমন্ত্ৰী বলেছেন, একান্ত প্ৰয়োজন ছাড়া বাইরে না যাওয়াই ভালো। বাড়ি থেকেই কাজ করুন। তাই ২২ মার্চের দিন জনতা কার্ফু প্ৰতিজন মানুষের পালন করা উচিত। দেশ,বিশ্ব এবং সর্বোপরি মানব জাতিকে বাঁচাতে সবাই এগিয়ে আসুন-আহ্বান জানান মোদি।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ করোনা আতঙ্কঃ জনতা ভবনে জনগণের প্ৰবেশ বন্ধ

অধিক খবরের জন্য ভিডিও দেখুন: CJM Court will only hear urgent matters till March 29 due to prevent Coronavirus Spread

Next Story