Begin typing your search above and press return to search.

সুষমা স্বরাজ প্ৰয়াত,শেষ টুইটে কাশ্মীর দ্বিখণ্ডিতকরণের জন্য প্ৰধানমন্ত্ৰীকে অভিনন্দন জানিয়ে লিখেছেন এই দিনেরই প্ৰতীক্ষায় ছিলাম

সুষমা স্বরাজ প্ৰয়াত,শেষ টুইটে কাশ্মীর দ্বিখণ্ডিতকরণের জন্য প্ৰধানমন্ত্ৰীকে অভিনন্দন জানিয়ে লিখেছেন এই দিনেরই প্ৰতীক্ষায় ছিলাম

Sentinel Digital DeskBy : Sentinel Digital Desk

  |  7 Aug 2019 11:02 AM GMT

নয়াদিল্লিঃ প্ৰাক্তন বিদেশ মন্ত্ৰী তথা বরিষ্ঠ বিজেপি নেত্ৰী সুষমা স্বরাজ মঙ্গলবার রাতে এইমসে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়েস হয়েছিল ৬৭ বছর। তাঁর মৃত্যুতে দেশ হারালো একজন সু্যোগ্যা নেত্ৰীকে। বিজেপি-র প্ৰথম মহিলা নেত্ৰী ছিলেন স্বরাজ। দিল্লির প্ৰথম মহিলা মুখ্যমন্ত্ৰীর পদও অলংকৃত করেছেন তিনি। মোদি সরকারের প্ৰথম দফা কার্যকালে ভারতের বিদেশ মন্ত্ৰীর দায়িত্ব নৈপুণ্যের সঙ্গে পালন করেছেন সুষমাজি। ইন্দিরা গান্ধীর পর সুষমাজি দেশের দ্বিতীয় মহিলা বিদেশমন্ত্ৰী হয়েছিলেন। মঙ্গলবার হঠাৎ হৃদরোগে আক্ৰান্ত হওয়ায় তাঁকে তড়িঘড়ি নতুন দিল্লির এইমসে ভর্তি করা হয়। কিন্তু স্ট্ৰোকের মাত্ৰা মারাত্মক হওয়ায় ডাক্তারদের পক্ষে শেষরক্ষা করা সম্ভব হয়নি।

মৃত্যুর মাত্ৰ তিন ঘণ্টা আগে অর্থাৎ রাত ৭.২৩ নাগাদ প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদির উদ্দেশে শেষবার টুইট করেন তিনি। ওই টুইটে জম্মু ও কাশ্মীর দ্বিখণ্ডিত করায় প্ৰধানমন্ত্ৰীকে আন্তরিক অভিনন্দন জানিয়েছেন স্বরাজ। টুইটে তিনি আরও উল্লেখ করেছেন ‘প্ৰধানমন্ত্ৰী জি আপনাকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমি জীবদ্দশায় এই দিনটি দেখার প্ৰতীক্ষায় ছিলাম। স্বরাজ যে প্ৰকৃতার্থেই এই দিনের অপেক্ষায় ছিলেন এবং উদ্দেশ্য পূরণ হওয়ার পর বিদায় নেওয়ার ঘটনা তাঁর গুণমুগ্ধদের মন আবারও নাড়িয়ে দেয়। স্বরাজ নিয়মিত টুইটার ব্যবহার করতেন। উইটি রাজনীতিক হিসেবে সবার কাছে জ্ঞাত ছিলেন তিনি। টুইটার ব্যবহারকারীদের প্ৰশ্নের তাৎক্ষণিক সাড়া দেওয়ায়ও সিদ্ধহস্ত ছিলেন স্বরাজ। সরকারি যে কোনও সমস্যার চটজলদি সমাধান অথবা কোনও মানুষ তাঁর সাহায্য চাইলে টুইটারে ব্যবস্থা গ্ৰহণের পথ বাতলে দেওয়ার অভ্যাস ছিল তাঁর। একজন সুদক্ষ বাগ্মীও ছিলেন তিনি।

https://twitter.com/SushmaSwaraj/status/1158737840752037889

স্বরাজের আকস্মিক প্ৰমাণে তাঁর গুণমুগ্ধ ও আনুগামীরা শোকবার্তা ও হৃদয়বিদারক টুইটে তাঁর প্ৰতি শ্ৰদ্ধার বন্যা বইয়ে দিচ্ছেন। সাম্প্ৰতিককালের সেরা মহিলা রাজনীতিক হিসেবে স্বরাজ ভারতীয় জনতা পার্টির একজন অগ্ৰণী এবং বহু প্ৰশংসিত রাজনীতিকের মর্যাদা অর্জনে সক্ষম হয়েছিলেন। প্ৰাক্তন প্ৰধানমন্ত্ৰী অটলবিহারী বাজপেয়ী,লালকৃষ্ণ আডবাণী থেকে শুরু করে নরেন্দ্ৰ মোদি,অরুণ জেটলি,অমিত শাহ এবং রাজনাথ সিং সহ দলের বরিষ্ঠ নেতারা প্ৰয়াত নেত্ৰীর কাজকর্মের ওপর সবসময়ই ভরসা রাখতেন। তাঁর আকস্মিক প্ৰয়াণে দলের এবং জাতীয় রাজনীতির অঙ্গনে যে ক্ষতি হলো তা কখনোই পূরণ হবার নয়।

বুধবার সকালে প্ৰয়াত নেত্ৰীর প্ৰতি অন্তিম শ্ৰদ্ধা জানাতে তাঁর বাড়িতে গুণমুগ্ধদের ভিড় লেগে যায়। রাষ্ট্ৰপতি রামনাথ কোবিন্দ,প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদি,বিরোধী নেতা রাহুল গান্ধী ও সোনিয়া গান্ধী সহ অন্যান্য নেতারাও প্ৰয়াত নেত্ৰীর প্ৰতি অন্তিম শ্ৰদ্ধা জানান।

https://twitter.com/rashtrapatibhvn/status/1158805999437799424

রাষ্ট্ৰপতি রামনাথ কোবিন্দ এক শোকবার্তায় বলেন,‘সুষমাজির আকস্মিক মৃত্যুতে অত্যন্ত দুঃখ পেয়েছি। সবার ভালবাসার পাত্ৰী একজন নেত্ৰীকে দেশ আজ হারালো। দেশ হারালো তার কন্যাকে। মর্যাদা,উৎসাহ ও দেশের জনজীবনে সংহতি জিইয়ে রাখতে এবং অন্যকে সাহায্যের হাত বাড়াতে সদা সচেষ্ট ছিলেন সুষমাজি। এই কাজের জন্য সবাই তাঁকে চিরকাল স্মরণে রাখবে।

অন্যান্য খবরের জন্য পড়ুনঃ সময়ের আগে সরকারি বাংলো ছেড়ে নজির গড়লেন সুষমা স্বরাজ

Next Story